ধর্ষিতাকে বিয়ে করলে শাস্তি মুকুব, বেনজির প্রস্তাব শীর্ষ আদালতের

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্তকে বেনজির প্রস্তাব দিল শীর্ষ আদালত(Supreme Court)। কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে থাকা ধর্ষককে বলা হল, ‘ধর্ষিতাকে বিয়ে করবে? না হলে কিন্তু জেল হবে।’ সম্প্রতি শীর্ষ আদালতের প্রধান বিচারপতি এস বোবদের(S Bobde) এহেন প্রস্তাবকে কেন্দ্র করে রীতিমতো বিতর্ক শুরু হয়েছে।

জানা গিয়েছে, মহারাষ্ট্র স্টেট ইলেক্ট্রিক প্রোডাকশন কোম্পানির কর্মী মোহিত সুভাষ চবনের বিরুদ্ধে Pocso Act-এ নাবালিকা ধর্ষণের মামলা দায়ের হয়। সম্প্রতি সেই মামলায় আগাম জামিন চেয়ে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হন অভিযুক্ত। মামলার শুনানির সময় বিচারপতি তাকে মনে করিয়ে দেন তিনি একজন সরকারি কর্মী। পাশাপাশি বলেন, ‘আপনি ওকে বিয়ে করতে রাজি হলে আমরা আপনাকে সহায়তা করতে পারব। না হলে কিন্তু আপনি চাকরি খোয়াবেন। জেলও হবে। আমরা আপনার উপর বিয়ে নিয়ে চাপ দিতে চাই না। সিদ্ধান্ত আপনাকেই নিতে হবে। সরকারি কর্মী হয়ে এমন কাণ্ড ঘটানোর আগে আপনার ভাবা উচিত ছিল।’ যদিও অভিযুক্ত ওই সরকারি কর্মী স্পষ্ট জানিয়ে দেন বিয়েতে তিনি রাজি নন। কারণ, তিনি বিবাহিত ব্যক্তি। পুনরায় তাঁর পক্ষে বিয়ে করা কোনওভাবেই সম্ভব নয়।

আরও পড়ুন:বিজেপিকে আটকাতে সর্বশক্তি দিয়ে তৃণমূলকে সমর্থন: মমতাকে বার্তা তেজস্বী-অখিলেশের

উল্লেখ্য, ধর্ষিতা নাবালিকার তরফে আদালতে দাবি করা হয় ধর্ষকের পরিবার তাকে প্রাণে মারার হুমকি দিয়েছে। পাশাপাশি ওই নাবালিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছে মোহিত ও তার পরিবার। কিন্তু সেই প্রস্তাবে রাজি না হয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করে নাবালিকা ও তার পরিবার। এদিকে আদালতে শুনানির সময় পকসোর মত এমন গুরুতর অভিযোগে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে এমন প্রস্তাব কীভাবে দিতে পারেন শীর্ষ আদালতের প্রধান বিচারপতি? স্বাভাবিকভাবেই বিষয়টি নিয়ে তীব্র বিতর্ক শুরু হয়েছে।

Advt