বয়ালে তুমুল উত্তেজনা, বুথের ভিতরে মমতা, বাইরে নাজেহাল বাহিনী

রাজ্যে দ্বিতীয় দফার ভোটের হাইভোল্টেজ কেন্দ্র নন্দীগ্রাম। প্রথমদিকে তিনি রেয়াপাড়ার বাড়িতে থাকলেও পড়ে তিনি ভোট পরিদর্শনে বেরোন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। হুইলচেয়ারে বসেই বয়াল ১ নম্বর পঞ্চায়েতের ৭ নম্বর বুথে যান তৃণমূল সুপ্রিমো। সেখানে গিয়ে তিনি সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলেন। স্থানীয় ভোটাররা তাঁকে জানান, কেন্দ্রীয় বাহিনী ভোট দিতে বাধা দিচ্ছে, মারধর করছে। মমতার কাছে পুনর্নির্বাচনের দাবি জানান স্থানীয়রা। বাইরে নাজেহাল বাহিনী।

তৃণমূল নেত্রী যখন বয়াল মাস্তুল স্কুলের ভিতরে ঢোকেন, সেই সময় বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা মমতাকে লক্ষ্য করে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি দেন। তাতে এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। এরপর তৃণমূল-বিজেপি মধ্যে হাতাহাতিও বেধে যায়। পরিস্থিতি সামাল দিতে এগিয়ে আসে রাজ্য পুলিশ এবং র‌্যাফ। প্রথমদিকে বুথের বাইরের পরিস্থিতি শান্ত না হওয়ায়, বুথের ভিতরই আটকে পড়েন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রায় ৪৫ মিনিট বুথের ভিতরে থাকার পর তিনি বেরিয়ে আসেন। এখন তিনি বুথের বাইরে রয়েছেন। পুলিশের তরফে মানবশৃঙ্খল গড়ে বিক্ষোভকারীদের আটকানোর চেষ্টা করছে পুলিশ।

আরও পড়ুন-মমতাকে কটূক্তি: অশালীনতার মাত্রা ছাড়ালেন শুভেন্দু!

দ্বিতীয় দফায় ভোট শুরু হতেই বয়াল, গোকুলনগর, সোনাচূড়া নিয়ে সকাল থেকেই নানা অভিযোগ সামনে আসছিল। তৃণমূলের অভিযোগ, সেখানকার বুথে তৃণমূল এজেন্টকে বসতে দেওয়া হয়নি। অবাধে ছাপ্পা ভোট করেছে গেরুয়া শিবির। বিষয়টি নিয়ে মমতার কাছে অভিযোগ জানান বয়ালের বাসিন্দারাও। মমতার উপস্থিতিতেই বুথের বাইরে ধুন্ধুমার বেধে যায় তৃণমূল এবং বিজেপি সমর্থকদের মধ্যে।

Advt