মমতার পা দোলানো নিয়েও রাজনীতি শুরু বিজেপির

রাজনীতির ফায়দা তুলতে ব্যক্তিগত কুৎসা এসেছে রাজনৈতিক দলগুলির হাতিয়ারে। তার প্রত্যক্ষ প্রমাণ এ রাজ্যের প্রতিদ্বন্দ্বীরা। অসুস্থ মুখ্যমন্ত্রী যখন রাজনৈতিক ময়দানে চষে বেড়াচ্ছেন, তখন তার সেই পদক্ষেপকে কটাক্ষ করে রাজনীতি শুরু করেছে বিরোধী বিজেপি।
কী বলছে তারা? মুখ্যমন্ত্রী নাকি পা দোলাচ্ছেন। যদি সেটাই সত্যি হয় তাহলে তো সেটা তো তার সুস্থতার লক্ষণ। সেটা নিয়ে রাজনীতি করার কী আছে ?
এই বিষয়ে একটা ভিডিও প্রকাশ পেয়েছে। বিজেপির মতো এমন নক্কারজনক এমন অমানবিক রাজনৈতিক প্রচার এর আগে দেখেনি পশ্চিমবঙ্গ।
তৃণমূল অবশ্য এই প্রচারকে একেবারেই গুরুত্ব দিতে চাইছে না। এমনই মন্তব্য রাজ্যের মন্ত্রী তথা বালিগঞ্জ কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের । তিনি বলেন, ‘‘ওরা যত কুৎসিত প্রচার সব করে! ওরা অমানবিক!’’ ওই ভিডিও কি সত্যি? সুব্রত বলেন, ‘‘ওদের সব কিছুই জোচ্চুরি আর জালিয়াতি!’’
বিকেলের দিকে তা ফেসবুকে পোস্ট করেন রাজ্য বিজেপি-র মুখপাত্র প্রণয় রায়। পাশাপাশিই তিনি বলেন, ‘‘আমরা প্রথম থেকেই বলেছিলাম গোটা ঘটনাটাই নাটক। এ বার দিদিমণি নিজেই সেটা প্রমাণ করে দিলেন। যে পায়ে ব্যথার জন্য ওঁকে হুইলচেয়ার নিয়ে ঘুরতে হয়, সেই পা উনি দিব্যি নাচাচ্ছেন! আর সেই ভাঙা পায়ের উপরে আরেকটা পা চাপিয়ে দেওয়া যায় না।’’
সুব্রত বলেন, ‘‘ভিডিওটা আমি দেখিনি। তবে যা শুনেছি, তাতে বাঁ পায়ের যেখানটায় ভাঙা সেখানে নয়, উনি অন্য জায়গায় ডান পা রেখেছেন। আসলে ভাঙা পা নিয়ে বিজেপির এই রাজনীতি অত্যন্ত নক্কারজনক।

Advt