নাগরিকত্ব না পেয়ে ভারত ছাড়তে বাধ্য হল ৮০০ পাকিস্তানি হিন্দু

কেন্দ্রীয় সরকারের(Central Govt) তরফে জানানো হয়েছিল পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে নিপীড়িত হিন্দু, খ্রিষ্টান, শিখ, পারসি, জৈন ও বৌদ্ধদের নাগরিকত্ব দেবে ভারত। সেই মতো ২০২১ সালে পাকিস্তান(Pakistan) থেকে হিন্দু শরণার্থীরা(Hindu Refusee) ভারতের পাঞ্জাবে এলেও নাগরিকত্ব(Citizenship) না পেয়ে ফের পাকিস্তানে ফিরে যেতে বাধ্য হল হিন্দুরা। সম্প্রতি এই তথ্যই প্রকাশ্যে এনেছে বেসরকারি সংস্থা সীমান্ত লোক সংগঠন (এসএলএস)। সংস্থার দাবি, প্রায় ৮০০ জন হিন্দু শরণার্থী ফের ফিরে গিয়েছেন পাকিস্তানে।

উল্লেখ্য, কেন্দ্রীয় সরকারের প্রস্তাব মতো পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশের বহু হিন্দু পরিবার নাগরিকত্বের জন্য অনলাইনে আবেদন করে। যদিও সরকারের তরফে এবিষয়ে তেমন কোনও উদ্যোগ না নেওয়ায় পাকিস্তানে ফিরে যান ৮০০ হিন্দু পরিবার। সম্প্রতি এসএলএস-এর রিপোর্টের ভিত্তিতে এই সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে সংবাদ মাধ্যম ‘দ্য হিন্দু’। সংবাদ মাধ্যমের তরফে আরও দাবি করা হয়েছে ওই হিন্দুরা ফের পাকিস্তানে ফিরে যাওয়ার ঘটনাকে হাতিয়ার করে ভারতের বদনাম করতে শুরু করেছে পাক সংবাদমাধ্যমগুলি।

আরও পড়ুন:মাটির বাড়ি ছেড়ে এবার লক্ষাধিক টাকার বাড়িতে  ‘বাদাম কাকু’, ভাইরাল হল বাড়ির ভিডিও 

এসএলএস সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে ২০১৮ সালে ভারত সরকারের তরফে নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্য অনলাইনে নাগরিকত্ব দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করে। শুরুতে ৭ রাজ্যের ১৬ জেলাশাসককে এই আবেদন গ্রহনের দায়িত্ব দেওয়া হয়। এরপর ২০২১ সালের মে মাসে গুজরাট, ছত্তিশগড়, রাজস্থান, হরিয়ানা ও পাঞ্জাবে আরও ১৩ জেলাশাসককে ১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব আইনের ৫ ও ৬ নম্বর ধারার অধীন হিন্দু, খ্রিষ্টান, শিখ, পারসি, জৈন ও বৌদ্ধ এই ছয় সম্প্রদায়ের সদস্যদের আবেদনে নাগরিকত্ব সনদ দেওয়ার ক্ষমতা দেওয়া হয়। পুরো প্রক্রিয়াটি অনলাইনে সম্পন্ন হচ্ছে। কিন্তু মেয়াদোত্তীর্ণ পাসপোর্ট অনলাইনে গ্রহণ করা হচ্ছে না। যার জেরে তৈরি হয়েছে সমস্যা। অন্যদিকে কেন্দ্রীয় সরকার এই বিষয়ে নাগরিক সংশোধনী আইন পাশ করালেও তা এখন কার্যকর করা হয়নি। যেখানে নাগরিকত্ব পাওয়ার জন্য বিধিনিষেধ কিছুটা শিথিল করেছিল সরকার। ফলস্বরুপ ভারতে এসেও পাকিস্তানে ফিরে যেতে হচ্ছে নিপীড়িত অমুসলিমদের।

এদিকে কেন্দ্রীয় রিপোর্ট বলছে, ২০১১-১৪ সাল নাগাদ পাকিস্তানি হিন্দুদের দীর্ঘমেয়াদি ভিসার সংখ্যা দাঁড়িয়েছিল ১৪ হাজার ৭২৬। গত বছরের নভেম্বর থেকে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত আরও ৬০০-র বেশি পাকিস্তানি হিন্দুকে দীর্ঘমেয়াদি ভিসা দেওয়া হয়েছে। সরকার আরও জানায়, ২০১৮-২১ সাল নাগাদ প্রতিবেশী তিনটি দেশ থেকে ছয় সম্প্রদায়ের সদস্যদের কাছ থেকে ৮ হাজার ২৪৪টি নাগরিকত্বের আবেদন পাওয়া গিয়েছে।




Previous articleলজ্জাজনক! এখনও নোবেল উদ্ধার করতে পারল না CBI: ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী