বিশ্বভারতীতে কালী নিয়ে লেকচার আসলে মায়ের প্রতি ভক্তি নয়, রাজনীতি! দাবি কুণালের

উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী, অধ্যাপক ও পড়ুয়ারাই নন, এই লেকচার সিরিজে উপস্থিত থাকবেন শারদআত্মানন্দ মহারাজও। এই নির্দেশিকাকে ঘিরে বিতর্ক তুঙ্গে

ফের বিতর্কে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়। রবীন্দ্র স্মৃতিবিজড়িত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হঠাৎ মা কালীকে নিয়ে নজিরবিহীন উদ্যোগ। যেখানে কোনওদিন কোনও মূর্তি পুজোর রেওয়াজ নেই। বিশ্বভারতীতে ব্রাহ্মধর্ম পালিত হওয়াই রেওয়াজ। মূর্তি পুজো তো দূর, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মূর্তিতেও মালা দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয় না! সেই কারণেই কর্তৃপক্ষের এমন হঠকারী সিদ্ধান্তে হতবাক প্রবীণ আশ্রমি থেকে সংশ্লিষ্ট সকলে। তাহলে হঠাৎ কেন “কালীপুজোর ধারনা” নিয়ে এমন উদ্যোগ? খুব স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন তুলছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলও।

ঠিক কী সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ?

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এক নির্দেশিকা জারি করে জানিয়েছে, আগামী ২৫ জুলাই, সোমবার বিশ্বভারতীর সেন্ট্রাল লাইব্রেরির সেমিনার হলে অনুষ্ঠিত হবে মা কালীকে নিয়ে এই লেকচার সিরিজ। উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী, অধ্যাপক ও পড়ুয়ারাই নন, এই লেকচার সিরিজে উপস্থিত থাকবেন শারদআত্মানন্দ মহারাজও। এই নির্দেশিকাকে ঘিরে বিতর্ক তুঙ্গে।

এ প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক তথা মুখপাত্র কুণাল ঘোষ তাঁর প্রতিক্রিয়াতে জানান, কালী মায়ের প্রতি ভক্তি নয়, আসলে মা-কে নিয়ে রাজনীতি করছে বিজেপি। এবং সেই প্রভাবটাই পড়েছে কেন্দ্রের অধীনে থাকা ঐতিহ্যবাহী এই বিশ্ববিদ্যালয়ে।

কুণাল ঘোষের কথায়, “কালীকথা নিয়ে বিশ্বভারতী যা করছে, কেন করছে, সেটা সবাই বুঝতে পারছেন। বাংলার শ্রেষ্ঠ শ্যামা সঙ্গীত কবি নজরুল ইসলামের রচনা। এই কর্মসূচি নেওয়ার আগে আমি বলবো, নজরুলের সেই গান যেন চালানো হয় বিশ্বভারতীতে।”

কুণালের আরও দাবি, “বাংলা ও বাঙালির কালীপুজো বা মা-কালীকে নিয়ে চর্চা, সেমিনার করে কালীভক্ত হওয়ার প্রয়োজন হয় না। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতেও কালীপুজো হয় দীর্ঘদিন ধরে। বিশ্বভারতীর আলোচনা দেখে বাঙালির কালীভক্তি শিখতে হবে না। আসলে নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতে ঠাকুর দেবতা নিয়ে রাজনীতি করে বিজেপি। বিশ্বভারতীও সেই পাল্লায় পড়েছে। ওরা যা করছে, তাতে ঠাকুর-দেবতাও ওদের পাশে থাকবে না।”

আরও পড়ুন:এজেন্সির চাপে নেতার ক্ষতি হলে ছেড়ে কথা বলবে না তৃণমূল, হুঁশিয়ারি চন্দ্রিমার

 

Previous articleIndia Team: কমনওয়েলথ গেমসে পদক জয়ই লক্ষ‍্য, বার্মিংহ্যামের উদ্দেশ্যে রওনা হওয়ার আগে বললেন স্মৃতি