আজ বিকেলে মোদি-মমতার বৈঠক

বিজেপির ঘোড়া কেনাবেচার বিষয়টি কার্যত গোটা দেশের কাছে এক্সপোজ করেছে বাংলা। অন্যদিকে রাজ্যের ৯৭ হাজার কোটি টাকার বকেয়া নিয়েও একাধিকবার সুর কেন্দ্রের বিজেপির সরকারের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছে তৃণমূল। পাশাপাশি রয়েছে কেন্দ্রের জনবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে একগুচ্ছ অভিযোগ। কেন্দ্র -রাজ্যের সংঘাতের এই আবহেই শুক্রবার বিকেলে দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠকে বসতে চলেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিকেল সাড়ে চারটে নাগাদ মুখোমুখি বৈঠকে বসবেন তাঁরা।এরপর আজ সন্ধেয় রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ  করার কথাও রয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

আরও পড়ুন:‘ষড়যন্ত্রী’ কে স্পষ্ট বলুক: পার্থর উদ্দেশ্যে বললেন তাপস রায়

বৃহস্পতিবার চার দিনের জন্য দিল্লি (Delhi) সফরে গিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। এদিন তৃণমূলের (TMC) সংসদীয় দলের বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছিল রাজ্যসভার সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায়ের বাড়িতে। সেখানে তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে সঙ্গে নিয়ে দলের সাংসদদের সঙ্গে  বৈঠকে বসেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠকে ১০০ দিনের কাজের বকেয়া টাকা নিয়ে আলোচনা হয়। আলোচনা হয় বিজেপির হর্স ট্রেডিং নিয়েও। রাজ্যসভার সাংসদরা জানান, কেন্দ্রের বিজেপি  সরকার ইডি-সিবিআইকে রাজনৈতিক হাতিয়ার করে বিরোধী দলগুলির বিরুদ্ধে ব্যবহারের প্রতিবাদে কীভাবে তাঁরা প্রতিবাদ করছেন। এমনকি অসমে দলের কাজ কেমন আছে, তা নিয়েও খোঁজ নেন মুখ্যমন্ত্রী।

অন্যদিকে, এদিন ১০০ দিনের বকেয়া টাকা নিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিংয়ের সঙ্গে দেখা করার বিষয়টি তুলে ধরেন সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন,  ১০০ দিনের কাজ সহ রাজ্যের বকেয়া নিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছিলেন। কথা ছিল ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে উত্তর দেবে কেন্দ্র। তবে তা এসেছে ১ মাস পরে। সে সংক্রান্ত যাবতীয় রিপোর্ট এদিন দলনেত্রীর হাতে তুলে দেন সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়।

মনে করা হচ্ছে এসকল বিষয় নিয়ে আজ, শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে প্রশ্ন তুলবেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

 

Previous articleমাত্র কয়েক ঘণ্টা!তারপরই বন্ধ থাকবে এসবিআইয়ের ব্যাঙ্কিং পরিষেবা, সেরে নিন কাজ