সরকারি কাজের ভাষা হিন্দি করার দাবিতে প্রস্তাব পেশ সংসদীয় কমিটির

হিন্দি ও আঞ্চলিক ভাষার বিতর্কের মাঝেই এবার সরকারি কাজের ভাষা হিন্দি(Hindi) করার দাবিতে জমা পড়ল প্রস্তাব। জানা গিয়েছে, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর(Amit Shah) নেতৃত্বাধীন সরকারি ভাষা সংক্রান্ত সংসদীয় কমিটির তরফে সুপারিশ করা হয়েছে, রাষ্ট্রসংঘ থেকে কেন্দ্রীয় বিদ্যালয় বা আইআইটিতে শিক্ষাদান, এমনকী হিন্দিভাষী রাজ্যের হাই কোর্ট- সর্বত্র হিন্দিই ব্যবহৃত হোক ইংরেজির পরিবর্তে।

সম্প্রতি এক সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের তরফে প্রকাশিত প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, সংসদীয় কমিটির রিপোর্ট স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক ইতিমধ্যে রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠিয়েছেন। রিপোর্টে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে, রাষ্ট্রসংঘে ভারতের সরকারি ভাষা হোক হিন্দি। আবার সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অর্থাৎ কেন্দ্রীয় বিদ্যালয় থেকে আইআইটি ও কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয় সেখানে শিক্ষাদানের ভাষাও হিন্দিই হোক। পাশাপাশি হিন্দিভাষী রাজ্যগুলিতে হাই কোর্টের কাজের ভাষাও করা হোক হিন্দিকে। সরকারি চাকরির পরীক্ষায় বাধ্যতামূলক ইংরেজির জায়গায় এবার থেকে হিন্দি রাখতে হবে। এছাড়াও যে সব সরকারি কর্মী ও আধিকারিকরা ইচ্ছাকৃত ভাবে হিন্দিতে কাজকর্ম এড়িয়ে যান, তাঁদের থেকে ব্যাখ্যা চাইতে হবে। সন্তোষজনক উত্তর না পেলে বার্ষিক পারফরম্যান্স রিপোর্টে সেটার উল্লেখও রাখতে হবে বলেও দাবি করেছে কমিটি।

এখানেই শেষ নয়, কমিটির তরফে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে সরকারি বিজ্ঞাপনের ৫০ শতাংশেরও বেশি হোক হিন্দি বিজ্ঞাপন। পাশাপাশি আঞ্চলিক ভাষাতে বিজ্ঞাপনেও জোর দেওয়ার কথা বলা হয়েছে রিপোর্টে। উল্লেখ্য, সাম্প্রতিক সময়ে দেশজুড়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বারবার উঠেছে হিন্দি আগ্রাসনের। দেশের প্রধান ভাষা হিসেবে হিন্দির পক্ষে সওয়াল করছেন খোদ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah)। যা নিয়ে বিতর্ক কম হয়নি। এবার সেই হিন্দি ভাষাকেই সরকারি কাজের ভাষা করার দাবীতে পেশ হলো প্রস্তাব। জানা গিয়েছে, গত মাসেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর এই রিপোর্ট জমা দিয়েছেন।

Previous articleলোকসভার লক্ষ্যে দেশজুড়ে বিজেপির “নমো-যাত্রা”, হারা আসন জিততে মরিয়া মোদি-শাহরা