অভিনেত্রী মাহিরা খানের সঙ্গে ফ্লার্ট, শোয়েবকে হাতেনাতে ধরলেন সানিয়া !

লাইভ চ্যাটে অভিনেত্রী মাহিরা খানের সঙ্গে দিব্যি ফ্লার্ট করছিলেন ক্রিকেটার  শোয়েব মালিক। কিন্তু বেশিক্ষণ এগোলো না। টেনিস তারকা স্ত্রী সানিয়া মির্জার কাছে ধরা পড়ে গেলেন তিনি। ব্যস!
তারপর আর কী …

ঘটনাটি হল পাকিস্তানে পিএসএল খেলতে গিয়ে আটকে পড়েছিলেন শোয়েব মালিক। প্রায় তিন মাস পাকিস্তানের শিয়ালকোটে নিজের বাড়িতেই কাটিয়েছেন পাক তারকা ক্রিকেটার শোয়েব  মালিক। অপরদিকে  হায়দ্রাবাদে নিজের বাড়িতে এসে লকডাউনে আটকে যান সানিয়া মির্জা।  গোটা লকডাউনে মিঁয়া-বিবির বিচ্ছেদ। শোয়েব রয়েছেন পাকিস্তানে। সানিয়া ভারতে। ছোট্ট ছেলে ইজহানকেও দেখতে পাচ্ছেন না শোয়েব মালিক। অবশেষে ইংল্যান্ডে খেলতে যাওয়ার আগে পিসিবি শোয়েবকে অনুমতি দেন পরিবারের সঙ্গে দেখা করার জন্য। অবশেষে পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে পারায় মানসিক শান্তি পান শোয়েব। মেজাজটাও হয়ে ওঠে বেশ ফুরফুরে। এই সুযোগেই ইনস্টাগ্রামে লাইভ চ্যাটে আড্ডা দিতে বসেন মাহিরা খানের সঙ্গে। আর সেখানেই ঘটল বিপত্তি। লাইভ চ্যাটে সরাসরি মাহিরার সঙ্গে ফ্লার্ট করলেন শোয়েব মালিক। আর তা হাতে নাতে ধরলেন সানিয়া মির্জা।

ইনস্টাচ্যাটে আড্ডা শুরুর সময়ই মাহিরা বলে বসেন,’আসলে আমাদের দুজনেরই বয়স হয়েছে। তাই ইন্টারনেটের টেকনিক্যাল ব্যাপারগুলো সামলাতে একটু হোঁচট খেতে হয় বটে। শোয়েব মালিক পাল্টা বললেন, আমি বুড়ো হয়েছি ঠিকই। তবে তোমার একটুও বয়স বাড়েনি।’ এরপরই মাহিরা পরিস্থিতি সামলে তাঁকে পাল্টা বলেন,’আমাদের এই চ্যাট যদি সানিয়া ভাবি দেখেন…!’ শোয়েব এরপর কিছুটা রসিকতা করলেন। বললেন, ‘সানিয়া আমার তো ভাবি নয়। শোয়েবের এই মশকরায় হেসে উঠলেন মাহিরা।’ বললেন, ‘না না সানিয়াকে তোমার ভাবি বলতে যাব কেন! সানিয়া মির্জা আসলে গোটা পাকিস্তানের ভাবি।’ এরপরই কথোপকথনের মাঝে চলে এলেন সানিয়া। হঠাৎ এসে বললেন,’তোমাদের মধ্যে কী কথা হচ্ছে তা আমি সবটাই শুনছি। আমার নজরে রয়েছে সবটাই’ এরপর অবশ্য চ্যাট আর বেশিক্ষণ গড়ায়নি।