ক্লাবেই মজুত ছিল বিস্ফোরক! বেলেঘাটাকাণ্ডে NIA তদন্তের দাবি জানালেন লকেট

সাতসকালে বিকট শব্দে ঘুম ভাঙে পাড়াপড়শীর। ভয়ঙ্কর বিস্ফোরণে উড়ে যায় একটি ক্লাবের ছাদ। বিস্ফোরণের তীব্রতা এতটাই বেশি ছিল যে, আশপাশের বাড়িগুলিতেও ফাটল ধরে। বেলেঘাটা গান্ধী ভবন সংলগ্ন এলাকায় এমন ঘটনা নিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে আতঙ্ক ও চাঞ্চল্য ছড়ায়। ঘটনাস্থলে গিয়ে পৌঁছয় পুলিশ ও ডগ স্কোয়াড। যায় ফরেন্সিক দলও। জিজ্ঞাসাবাদ ও নমুনা সংগ্রহের কাজ হয়। ঘটনাস্থল ঘিরে রাখে পুলিশ। আসে বম্ব স্কোয়াডও।

অসমর্থিত সূত্রে খবর, তদন্তে নেমে পুলিশ প্রাথমিক ভাবে জানতে পেরেছে, বাইরে থেকে বোমা ছোঁড়া হয়নি। ওই ক্লাবের মধ্যে আগে থেকেই মজুত ছিল ক্রুড বোমার সরঞ্জাম।সেগুলিই ফেটেই বিস্ফোরণ ঘটেছে। ঘটনাস্থল থেকে প্রচুর পরিমাণে স্লিন্টার বাজেয়াপ্ত করেছে ফরেন্সিক দল। সালফার-অ্যামোনিয়ামের নমুনা পাওয়া গিয়েছে।

আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৬টা নাগাদ বিস্ফোরণের ঘটনাটি ঘটে। সাতসকালে হঠাৎ বিকট শব্দে কেঁপে ওঠে এলাকা। ঘুম চোখে ভয়ে আড়ষ্ট হয়ে যান বাসিন্দারা। বিস্ফোরণে উড়ে গিয়েছে একটি বাড়ির ছাদ। যেটা একটি ক্লাব। এলাকা তছনছ। এদিক-ওদিক ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে ইট-কাঠ-লোহা-কাঁচের টুকরো।

কিন্তু ঠিক কী কারণে এই বিস্ফোরণের ঘটনা তা নিয়ে কেউ সঠিক তথ্য দিতে পারছেন না। স্থানীয়দের বক্তব্যে অনেকগুলি সম্ভাবনার বিষয় উঠে আসছে। যা নিয়ে শুরুতে ধোঁয়াশা তৈরি হয় পুলিশের মধ্যে। কারণ, সে সময়ে
ক্লাবের সদস্যরা বলেছিলেন, বাইকে চড়ে কেউ বা কারা বাইরে থেকে এসে আসে এই বিস্ফোরণ ঘটিয়ে চম্পট দেয়। আরেকটি সূত্র বলছে, ওই ক্লাবেই নাকি রাখা ছিল বিস্ফোরক। কিন্তু সঠিক তথ্য, ক্লাবের মধ্যেই আগে থেকে মজুত ছিল বিস্ফোরক।

এদিকে বেলেঘাটা বিস্ফোরণ কাণ্ডে রাজনৈতিক সলতে পাকাতে শুরু করে বিজেপি। সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়, উত্তর কলকাতা জেলা বিজেপি সভাপতি শিবাজি সিংহ রায় ও রাজ্য কমিটির সদস্য গৌতম চৌধুরীর নেতৃত্বে বিজেপি একটি মিছিল করে বিস্ফোণস্থলের দিকে এগোতে গেলে পুলিশ মিছিলে বাধা দেয়। যা নিয়ে সাময়িক উত্তেজনা ছড়ায় বেলেঘাটা চত্বরে।

এরপর রাস্তায় দাঁড়িয়ে লকেট চট্টোপাধ্যায় অভিযোগ করেন, বেলেঘাটা দুষ্কৃতীদের মুক্তাঞ্চলে পরিণত হয়েছে। এখানে সাধারন মানুষ ভয়ে ঢুকতে পারে না। বেলেঘাটায় চিরকাল বোমাবাজি করে জিতে এসেছে শাসক দল। একুশের নির্বাচনের আগেও ক্লাবগুলিতে বোমা মজুদ রাখা হচ্ছে। ক্লাবগুলোকে ৫০ টাকা কি তাহলে এই কারণেই দেওয়া হচ্ছে? প্রশ্ন তোলেন লকেট।

এরপর সুর চড়িয়ে বিজেপি সাংসদ বলেন, বেলেঘাটা বিস্ফোরণ নিয়ে NIA তদন্তের দাবি জানাচ্ছেন তারা। এই ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত রিপোর্ট স্বরাষ্ট্র দফতরের যাওয়া দরকার বলে মনে করে বিজেপি।

আরও পড়ুন-বেলেঘাটায় ভয়ঙ্কর বিস্ফোরণ, উড়ে গেল ক্লাবের ছাদ! তারপর?