বাম থেকে রামে অভিনেত্রী পাপিয়া, কী বলছে সিপিএম

জল্পনাই সত্যি হলো। প্রত্যাশামতোই আনুষ্ঠানিকভাবে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখালেন অভিনেতা (Actor) যশ দাশগুপ্ত (Josh Dasgupta)। এই মুহূর্তে টলিউডের (Tollywood) অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা যশ শুধু নয়, তাঁর সঙ্গেই বিজেপির (BJP) পতাকা হাতে তুলে নিলেন টলিপাড়ার পরিচিত মুখ পাপিয়া অধিকারী (Papiya Adhikary), সৌমিলি বিশ্বাস, শর্মিলা ভট্টাচার্য-সহ একঝাঁক সিনে ও সিরিয়াল তারকা।

একুশের নির্বাচন (Assembly Election) যতই এগিয়ে আসছে, ততই সরগরম টলিপাড়া (Tollywood Para)। ঘাসফুল-পদ্মফুলে কার্যত আড়াআড়ি বিভাজন টালিগঞ্জ স্টুডিও পাড়া। সম্প্রতি, কৌশানী মুখোপাধ্যায়, সৌরভ দাস, রণিতা দাস, সৌপ্তিক চক্রবর্তী, শ্রীতমা ভট্টাচার্য, লাভলি মৈত্র, ভরত কল, দীপঙ্কর দে’র মত স্টাররা শাসক দল তৃণমূলে (TMC) যোগ দিয়েছিলেন।

সেই পথে হেঁটেই এবার বিরোধী গেরুয়া শিবিরে আজ, বুধবার যোগ দিলেন একঝাঁক তারকা। কিন্তু এটা কী দেখলো বাংলার মানুষ! শাসক তৃণমূলের (TMC) অভিযোগ-ই সত্যি প্রমাণিত হলো। এবং দায়িত্ব নিয়ে সেটা প্রমাণ করলেন অভিনেত্রী পাপিয়া অধিকারী! পাপিয়া অভিনয় জগতে বাকিদের মতো নতুন নয়, টলিপাড়ায় তাঁর দীর্ঘ কেরিয়ার। সক্রিয় রাজনীতিতে সেভাবে দেখা না গেলেও, পাপিয়া বারেবারে বুঝিয়ে দিয়েছেন তিনি বামপন্থায় বিশ্বাসী, একজন সাচ্চা বামপন্থী! সেই পাপিয়াই কি-না, ১৮০ নয় ৩৬০ ডিগ্রি পাল্টি খেয়ে গেরুয়া শিবিরে। বাম থেকে রামে ট্রান্সফার নতুন কিছু নয়, কিন্তু এভাবে? নির্বাচনের ঠিক আগে? নীতি-আদর্শ বিসর্জন দিয়ে কোনও স্বার্থে নয় তো? প্রশ্ন উঠছে সংশ্লিষ্ট মহলে। এবং সেটাই স্বাভাবিক।

পাপিয়ার ভোল বদল নিয়ে কী বলছে বাম তথা তাদের বড় ভাই সিপিএম? অনেক যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও এ বিষয়ে কেউ কোনও মন্তব্য করতে চাননি সিপিএম নেতারা। মন্তব্য করবেন-ই বা কীভাবে, গত কয়েক বছরে যে তাঁরা নিজেরাই নীতি-আদর্শ জলাঞ্জলি দিতে হার্ট-কিডনি-লিভার বন্ধক রেখেছেন গেরুয়া শিবিরে। বিধানসভা ভোটের আগে সেটা ফেরত নেওয়ার চেষ্ট চালানোর মাঝেই পাপিয়া নামক বাম বুদ্ধিজীবীর পদ্ম শিবিরে যোগদান! রাজনৈতিক ভাবে পাপিয়া সেভাবে গুরুত্ব না থাকলেও, তাঁর এহেন কার্যকলাপে বাম-রাম সম্পর্ক প্রকট হলো। এবং এমন একটা সময়ে সেটা হল, যখন বামেরা রামের কাছ থেকে নিজেদের বন্ধক ফেরতের চেষ্টা চালাচ্ছে।

কিছুদিন আগেই অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ পুরোনো শিবির ছেড়ে গেরুয়া জার্সি পরেছেন। যিনি বাম ছেড়ে ঘাসফুল হয়ে রামের প্রতি আসক্তি হয়েছেন। ছোটপর্দার পরিচিত মুখ কৌশিক রায়ও পদ্ম শিবিরে নাম লিখিয়ে ছিলেন। এবার বাম থেকে সরাসরি রামে পাপিয়া! বছর কয়েক আগে এভাবেই সুমন বন্দ্যোপাধ্যায়, রিমঝিম মিত্র, অঞ্জনা বসু, রূপাঞ্জনারা ভিড়ে ছিলেন বিজেপিতে। ফের সেই ছবি দেখা গেল এদিন। যা ভোটের আগে রাজনৈতিক ভাবে খুব তাৎপর্যপূর্ণ।

একঝাঁক তারকা এদিন বিজেপিতে যোগ দিলেও সকলের নজর ছিল এই মুহূর্তে জনপ্রিয় অভিনেতা যশ দাশগুপ্তের দিকে। একইসঙ্গে পাপিয়ার দিকেও। এদিন বিজেপিতে যোগ দিয়ে যশ বলেন, “রাজনীতি মানেই খারাপ কিছু নয়। আমার মনে হয়, পরিবর্তন শুধু চাইলেই হয় না, মুখে পরিবর্তনের কথা বললেই হয় না। বৃহত্তর স্বার্থে মাঠে-ময়দানে নেমে কাজ করতে হয়। এখন সেই সময় এসেছে। কোনও পদের কথা চিন্তা করে যোগ দিইনি। বিজেপির সঙ্গে আমার আদর্শ মেলে। তাই এই দলের হয়ে প্রাণ খুলে কাজ করতে পারব। যুবসমাজের সঙ্গে কাজ করতে চাই আমি। তাই বিজেপিতে যোগদান।”

প্রসঙ্গত, ছোট পর্দা থেকে অভিনয় বাংলা অভিনয় জগতে হাতেখড়ি যশের। ‘বোঝে না সে বোঝে না’ ধারাবাহিকের অরণ্য চরিত্র খুব অল্পদিনের মধ্যেই তাঁকে তুমুল জনপ্রিয়তার জায়গায় নিয়ে গিয়েছে। এরপর বিরসা দাশগুপ্ত পরিচালিত ‘গ্যাংস্টার’ ছবির মাধ্যমে টলিউডে অভিষেক যশের। গত বছর আবার তৃণমূলের দুই অভিনেত্রী-সাংসদ মিমি চক্রবর্তী (Mimi Chakraborty) ও নুসরত জাহানের (Nusrat Jahan) সঙ্গে ‘SOS কলকাতা’ ছবিতে অভিনয় করেন। সম্প্রতি, ‘ডিকশনারি’র প্রিমিয়ারেও একসঙ্গে দেখা গিয়েছিল নুসরাত-যশকে। টলিউডের সেই জটিল সমীকরণের মধ্যে যশের বিজেপিতে যোগদান রাজনৈতিকভাবে খুব তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল।

 

আরও পড়ুন- রুদ্রনীলের বিজেপি যোগের পরই ‘বাঙালি’ ‘বাংগালী’ হয়ে গেল, নেটাগরিকদের সমালোচনার মুখে অভিনেতা

Advt