বনদফতরের উদ্বেগ বাড়িয়ে নিখোঁজ সুন্দরবনের রেডিও কলার পরানো বাঘ

শেষবার সিগন্যাল পাওয়া গিয়েছিল ১১ মে বাংলাদেশের(Bangladesh) তালপট্টির জঙ্গলে। তারপর থেকে আর কোনো খোঁজ মিলছে না বাঘটির। নেই কোনও সিগন্যাল। ফলে কোথায় এবং কী অবস্থায় রয়েছে সে, আদৌ বেঁচে আছে? নাকি মারা গেছে? তা নিয়ে যথেষ্ট উদ্বিগ্ন রাজ্যে বনদপ্তর(Forest Department)।

সুন্দরবনের রয়েল বেঙ্গল টাইগারের(Royal Bengal tiger) গতিবিধি জানতে গত ২০২০ সালের ২৮ ডিসেম্বর হরিখালি বিটের হরিণভাঙা জঙ্গলে সাত বছর বয়সি একটি পুরুষ বাঘের গলায় রেডিও কলার পরায় বনদপ্তর। রাজ্যের বনদপ্তরকে অত্যাধুনিক মানের এই রেডিও কলারটি সরবরাহ করে ডব্লুডব্লুএফ ইন্ডিয়া। মূলত সুন্দরবনে মাছ কাঁকড়া ধরতে যাওয়া মৎস্যজীবীদের জীবনহানির আশঙ্কা করেই বাঘের গলায় রেডিও কলার পরানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। হঠাৎ সেখান থেকে সিগনাল আসা বন্ধ হয়ে গিয়েছে। তাতেই বেড়েছে দুশ্চিন্তা। রেডিও কলার ছিড়ে গিয়েছে? নাকি নষ্ট হয়ে গিয়েছে? তা নিয়েই এখন নানান প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

আরও পড়ুন:কায়া আছে ছায়া নেই, বারবেলাতেই উধাও ছায়া

বনদফতরের সূত্রে জানা গিয়েছে, মার্কিন প্রযুক্তিতে তৈরি এই রেডিও কলার মূলত দুই থেকে তিন বছর কার্যকর থাকে। তবে সুন্দরবনের নোনা জলের কারণে এটি দেড় বছর পর্যন্ত কার্যকর থাকবে বলে আশা করা হয়েছিল। অনুমান করা হচ্ছে নোনা জলের কারণে বা নদী খাটিতে সাঁতার কাটার কারণে এটি নষ্ট হয়েছে কিংবা গলা থেকে কোনওভাবে খুলে গিয়েছে। তবে ঘটনা যাই হোক আপাতত বাঘটির হদিশ পেতেই মরিয়া বনদপ্তর। জানিয়ে রাখি, ভারতীয় বাঘ বাংলাদেশে ঢুকে পড়া কোন নতুন বিষয় নয়। জঙ্গলের মধ্যে কোনরকম বেড়া না থাকার কারণে সুন্দরবনের জঙ্গলে অবাধ যাতায়াত রয়েছে বন্যপ্রাণীদের।

Advt