লাল-হলুদের থেকে ‘ভারত গৌরব’ সম্মান পাওয়াটা বিরাট ব্যাপার, বললেন লিয়েন্ডার

কলকাতা মানেই ইস্টবেঙ্গল-মোহনবাগান ডার্বি। ডার্বির কথা কী শুনেছেন? সাংবাদিকদের এই প্রশ্নে সটান উত্তর লিয়েন্ডারের। বললেন, হ‍্যাঁ শুনবো না?

আজ ১ আগস্ট। ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের ( EastBengal Club) প্রতিষ্ঠা দিবস। সোমবার সকালে লাল-হলুদ ক্লাবের ১০৩ তম প্রতিষ্ঠা দিবসের শুভ সূচনা করেন রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস (Aroop Biswas)। পতাকা উত্তোলন, প্রদীপ প্রজ্জ্বলন, কেক কেটে সকালে পালন করা হল লেসলি ক্লডিয়াস সরণির ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটির জন্মদিন। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ক্লাবের প্রাক্তন ফুটবলাররা। উপস্থিত ছিলেন ক্লাবের সমর্থকেরা। আর বিকেলে ঝাঁ চকচকে লাল-হলুদের প্রতিষ্ঠা দিবস। এবছর ‘ভারত গৌরব’ সম্মান পাচ্ছেন লিয়েন্ডার পেজ এবং ঝুলন গোস্বামী। ভারত ‘গৌরব সম্মান’ নিতে বাবা ভেস পেজ এবং বান্ধবী কিম শর্মাকে নিয়ে আবেগে ভাসলেন ভারতের প্রাক্তন টেনিস খেলোয়াড়।

বান্ধবী কিম শর্মাকে সঙ্গে নিয়ে যখন লিয়েন্ডার ইস্টবেঙ্গলের অনুষ্ঠানে ঢুকছেন, ঠিক তখনই ক্ষুদিরাম অনুশীলন কেন্দ্রে ঢুকছেন ঝুলন গোস্বামী। ভেতরে ঢোকার আগেই টেনিস লেজেন্ডকে ছেঁকে ধরল কলকাতার মিডিয়া। যত্নশীল প্রেমিকের মত কিমকে ঢুকিয়ে দিলেন ভেতরে। নিজে ঢুকে জড়িয়ে ধরলেন ঝুলন গোস্বামীকে। কলকাতাতেই বড় হওয়া তাঁর। তাই নিজের শহরের ক্লাবের থেকে ভারত গৌরব সম্মান পাওয়াটা বিরাট ব্যাপার, জানালেন লিয়েন্ডার। এদিন ‘ভারত গৌরব’ সম্মান পাওয়া নিয়ে প্রাক্তন টেনিস খেলোয়াড় বলেন,” খুবই ভালো লাগছে। ইস্টবেঙ্গলের একটা ইতিহাস আছে, ঐতিহ্য আছে। কলকাতার ছেলে আমি। কলকাতায় বড় হওয়া। এই অনুভূতিটা সত‍্যি  আলাদা। ময়দান মানেই ইস্টবেঙ্গল, মোহনবাগান, মহামেডান, যুবভারতী। আজ ইস্টবেঙ্গল আমাকে এই সম্মান দিচ্ছে যা এক অন‍্যরকমের অনুভূতি।”

কলকাতা মানেই ফুটবল, কলকাতা মানেই ইডেন, কলকাতা মানেই যুবভারতী। বেড়ে ওঠা কলকাতায়। তাই সোমবার বিকেলে ক্ষুদিরাম অনুশীলন কেন্দ্র সাংবাদিকদের সামনে আবেগতাড়িত লিয়েন্ডার। বললেন ইস্টবেঙ্গল, ইডেন, যুবভারতী, উইম্বলডন, ইউএস ওপেনের পথ অনেক মসৃণ করেছে। লিয়েন্ডার বলেন,” ইস্টবেঙ্গল মাঠে খেলেছি, ইস্টবেঙ্গল, মোহনবাগান, যুবভারতীর মধ‍্যে বেড়ে ওঠা, এইখানের মানুষের খেলা প্রতি ভালোবাসা, এই সবই আমাকে উইম্বলডন, ইউএস ওপেনে খেলতে সাহায্য করেছে।”

কলকাতা মানেই ইস্টবেঙ্গল-মোহনবাগান ডার্বি। ডার্বির কথা কী শুনেছেন? সাংবাদিকদের এই প্রশ্নে সটান উত্তর লিয়েন্ডারের। বললেন, হ‍্যাঁ শুনবো না? ইস্ট-মোহনের ডার্বির যুদ্ধ কে না জানে। আমি জানি, এবং এই খেলা খুবই উপভোগও করি।”

একসময় বাবা ভেস পেজের হাত ধরে ময়দানে আসতেন লিয়েন্ডার। আজ বাবাকে সঙ্গে নিয়ে এসেছেন ‘ভারত গৌরব’ সম্মান নিতে, যার ফলে আবেগে ভাসছেন তিনি।

আরও পড়ুন:ফের লাল-হলুদে ভিপি সুহের : সূত্র

 

Previous articleধাক্কা সামলে আরও ঊর্ধ্বমুখী শেয়ারবাজার, ৫৪৫ পয়েন্ট বাড়ল সেনসেক্স