ক্রিকেটে একাধিক নতুন নিয়ম আনল আইসিসি, টি-২০ বিশ্বকাপ খেলা হবে নতুন নিয়মে

যে কার্যকরী সমিতির প্রধান ছিলেন বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। সেই বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ১ অক্টোবর থেকে ক্রিকেটের বেশ কিছু নিয়ম বদলে যাবে। যার মধ‍্যে অন‍্যতম হল মানকাডিং আউট। টি-২০ বিশ্বকাপে খেলা হবে নতুন নিয়মেই।

ক্রিকেটের বেশ কিছু নিয়মের বদল আনল আইসিসি (ICC)। মঙ্গলবার ছিল আইসিসির মুখ্য কার্যকরী সমিতির বৈঠক। যে কার্যকরী সমিতির প্রধান ছিলেন বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় (Sourav Ganguly)। সেই বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ১ অক্টোবর থেকে ক্রিকেটের বেশ কিছু নিয়ম বদলে যাবে। যার মধ‍্যে অন‍্যতম হল মানকাডিং আউট। টি-২০ বিশ্বকাপে খেলা হবে নতুন নিয়মেই।

ক্রিকেটে বিতর্কিত নিয়মগুলোর মধ্যে অন্যতম মানকাডিং আউট। ক্রিকেট খেলায় বোলার বোলিং অ্যাকশন শেষ করার আগেই নন স্ট্রাইকার যদি পপিং ক্রিজ ছেড়ে যান, তা হলে স্ট্যাম্প ভেঙে দিয়ে তাঁকে রানআউট করা হলে, সেটিকে মানকাডিং বলা হয়। এত দিন ধরে এই আউটকে খেলার স্পিরিটের পরিপন্থী হিসেবে বিবেচনা করা হত। কিন্তু আইসিসির নতুন নিয়মে এখন থেকে মানকাডিং আউটও সাধারণ রানআউটের মতোই গণ্য করা হবে।

একনজরে যে নতুন নিয়ম গুলি ১ অক্টোবর থেকে কার্যকর হবে:

১) মানকাডিং আউট: বোলিং অ্যাকশন শেষ করার আগেই নন স্ট্রাইকার যদি পপিং ক্রিজ ছেড়ে যান, তা হলে স্ট্যাম্প ভেঙে দিয়ে তাঁকে রানআউট করা হলে, সেটিকে মানকাডিং বলা হয়। এখন থেকে মানকাডিং পদ্ধতিতে রান আউট করলে সেটাকে আর অসৎ উপায়ে আউট করা বলে ধরা হবে না।

২) ক্যাচ আউটে ব্যাটারের অবস্থান: কোনও ব্যাটার ক্যাচ আউট হলে তাঁর বদলে নামা ব্যাটার খেলবেন স্ট্রাইকারের দিকে। ক্যাচ নেওয়ার আগে ক্রিজের অপর প্রান্তে চলে গেলেও নতুন ব্যাটারকেই ব্যাট করতে হবে। একমাত্র ওভারের শেষ বলে ক্যাচ আউট হলে নতুন ব্যাটার নন-স্ট্রাইকারের দিকে নামবেন।

৩) ক্রিকেট বলে লালার ব্যবহারে স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা: করোনার সময়ে সংক্রমণ রোধে ক্রিকেট বলে লালার ব্যবহার নিষিদ্ধ করে দিয়েছিল আইসিসি। কোনও দল এই ভুল একবার করলে, তাদের সতর্ক করে দেওয়া হতো। দ্বিতীয় বার করলে বোলার এবং অধিনায়ককে শাস্তি দেওয়া হত। তবে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও, লালার ব্যবহারের উপর স্থায়ী ভাবে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

৪) ব্যাটিং শুরুর জন্য নির্ধারিত সময়: এখন থেকে একদিন এবং টেস্টে কোনও ব্যাটার আউট হওয়ার পর দু’মিনিটের মধ্যে নতুন ব্যাটারকে প্রথম বল খেলার জন্য প্রস্তুত হতে হবে। আগের নিয়মে একদিনের ম‍্যাচে এবং টেস্টে ব্যাটাররা এ ক্ষেত্রে তিন মিনিট সময় পেতেন। অন্য দিকে টি-২০ সময় পাবেন ৯০ সেকেন্ড।

৫) পিচ ব্যবহারে ব্যাটারের অধিকার: যে কোনও ডেলিভারি মোকাবিলা করার জন্য ব্যাটারের ব্যাট অথবা শরীরের যে কোনও অংশ পিচের ভেতরেই থাকতে হবে। অন্যথায় এটি ডেড বল হিসেবে গণ্য হবে। একই ভাবে বোলারের কোনও ডেলিভারি যদি ব্যাটারকে পিচের বাইরে নিয়ে যায় তাহলে সেটি নো বল ডাকা হবে।

৬) ফিল্ডিং দলের অনৈতিক জায়গা পরিবর্তন: এক জন বোলার যখন বল করছেন, সেই সময় কোনও ফিল্ডার যদি জায়গা বদল করেন বা ইচ্ছাকৃত ভাবে নড়াচড়া করেন তা হলে ব্যাটিং সাইডকে পাঁচ রান পেনাল্টি হিসাবে দেওয়া হবে। বলটিকেও ‘ডেড বল’ ধরা হবে।

৭) রান আউটের নিয়ম বদল: বল করার সময় কোনও ব্যাটার যদি ক্রিজে বাইরে চলে আসেন তা হলে বোলার বল ছুড়ে রান আউট করতে পারতেন। এখন সেটা হলে ‘ডেড বল’ বলা হবে।

৮) হাইব্রিড পিচ ব্যবহারের অনুমোদন: এত দিন শুধু মেয়েদের টি-২০ ক্রিকেটে হাইব্রিড পিচে খেলার নিয়ম ছিল। এখন থেকে ছেলেদের ক্রিকেটেও শুধু ওডিআই এবং টি-২০ ম‍্যাচে হাইব্রিড পিচ ব্যবহারের অনুমতি দিল আইসিসি। হাইব্রিড পিচ হল কৃত্রিম ভাবে তৈরি পিচ যেখানে প্রাকৃতিক ভাবে ঘাস গজায়।

৯) ম্যাচ চলার সময়ে পেনাল্টি শুরু ওয়ানডেতেও: সময়ের মধ্যে ওভার শেষ করতে না পারলে এক জন ফিল্ডার ৩০ গজের মধ্যে বেশি রাখতে হত। এই নিয়ম এত দিন ছিল শুধু টি-২০ ক্রিকেটের জন্য। বিশ্বকাপ সুপার লিগ ২০২৩ এর পর থেকে এক দিনের ক্রিকেটেও এই নিয়ম চালু করা হবে।

একাধিক নিয়ম ক্রিকেটের উন্নতি হবে বলেই মনে করছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় । বৈঠক শেষে তিনি বলেন, “সমিতির সদস্যরা দারুণ ভাবে সাহায্য করেছে নতুন নিয়ম তৈরি করতে। সব সদস্যদের ধন্যবাদ তাদের মূল্যবান উপদেশের জন্য।”

আরও পড়ুন:শৌচাগারে রাখা ভাত, তরকারি, পরিবেশন করা হচ্ছে কবাডি খেলোয়াড়দের, উত্তরপ্রদেশের এই ঘটনা ঘিরে বিতর্ক

 

Previous articleবুধে ‘আলিপুর মিউজিয়াম’-এর উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী