শিলিগুড়ির উন্নয়নে তৃণমূলের তুরুপের তাস ‘দিদির প্রতিনিধি’

পুর নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের (Trinamool Congress) মূল হাতিয়ারই উন্নয়ন। তাই শিলিগুড়ি (Siliguri) সার্বিক উন্নয়নের লক্ষে দিদির প্রতিনিধিদের চায় ট্যাগলাইনকে প্রকাশ্যে আনতে চাইছে। দিদির প্রতিনিধিদের চায় এই ট্যাগ লাইনকে সামনে রেখেই রিপোর্ট কার্ডে পেশ করছে তৃণমূল কংগ্রেস।

বাম আমলে অবহেলিত শিলিগুড়িতে গত সাত মাসে প্রাণ ফিরিয়েছে গৌতম দেবরা। বাম আমলে অশোক ভট্টাচার্যদের কাজ করার সুযোগ থাকলেও তেমন উন্নয়নমুখী হননি তারা। তবে সাত মাস প্রশাসনিক বোর্ডের চেয়ারম্যান পদে থেকে বিল্ডিং প্ল্যান পাশ থেকে শুরু করে ট্রেড লাইসেন্স রিনুয়াল সহ নতুন লাইসেন্স এর সমস্যা সমাধান হয়েছে। এমনকি সাধারণ মানুষের সমস্যা সমাধানে টক চেয়ারম্যান আরও উদ্যোগী হয়েছিলেন গৌতম দেব।

বুধবার শিলিগুড়িতে তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয় আনুষ্ঠানিকভাবে জেলা সভানেত্রী পাপিয়া ঘোষ ও গৌতম দেব যৌথভাবে সাধারণ মানুষের উদ্দেশ্যে একটি আবেদনপত্র পেশ করেন। আবেদনপত্র মূলত গুরুত্ব পেয়েছে সার্বিক উন্নয়নের লক্ষে শিলিগুড়ি এবার দিদির প্রতিনিধিদের চায় নামক ট্যাগলাইন। এদিন এই প্রসঙ্গে জেলা সভানেত্রী পাপিয়া ঘোষ বলেন, শিলিগুড়ি উন্নয়নে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীদের আশীর্বাদ করবে সাধারণ মানুষ। কারণ শিলিগুড়ির (Siliguri) উন্নয়ন একমাত্র তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষেই সম্ভব। অন্যদিকে এই প্রসঙ্গে গৌতম দেব বলেন, শিলিগুড়ি সার্বিক উন্নয়নের লক্ষে দিদির প্রতিনিধিদেরও চাই এই ট্যাগ লাইনকে সামনে রাখা হচ্ছে। কারণ হিসেবে তিনি বলেন দীর্ঘদিন যাবৎ শিলিগুড়ি পুরো বোর্ডে বামেরা ক্ষমতায় ছিল। কিন্তু শহরের কোন উন্নয়ন তারা করেনি। অথচ গত ৭ মাস সময় কালে পুরো বোর্ডের যা কাজ হয়েছে তা নাগরিকদের কাছে তুলে ধরেন তিনি। এছাড়াও আগামী পরিকল্পনার বিষয়ে নানা বিষয় উল্লেখ করেন তিনি।

আরও পড়ুন- ডায়মন্ড হারবার মডেলেই হবে কোভিডমুক্তি, বললেন কুণাল সরকার

Previous articleডায়মন্ড হারবার মডেলেই হবে কোভিডমুক্তি, বললেন কুণাল সরকার