নাড্ডার সফর ঘিরে ফের প্রকাশ্যে বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব-মারপিট! নেতাদের ধমকালেন লকেট

বঙ্গ বিজেপির মুষল পর্ব অব্যাহত। দলের সর্বভারতীয় সভাপতির সফরেও তার ব্যতিক্রম হল না। রাজ্যে আসা এবং তাঁর জেলা সফর ঘিরে ফের প্রকাশ্যে বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। যা হাতাহাতি-মারপিট পর্যন্ত গড়ালো। এই ঘটনায় গুরুতর আহত একধিক বিজেপি কর্মী।

নাড্ডার সফরকে কেন্দ্র করে ঠিক কী ঘটেছে?

পূর্ব পরিকল্পিত সূচি অনুযায়ী, আজ, বুধবার হুগলিতে দু’‌টি কর্মসূচিতে যোগ দেন বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। প্রথমটি ছিল চুঁচুড়ার জোড়াঘাটে ঋষি বঙ্কিমচন্দ্র চট্টপাধ্যায়ের স্মৃতি বিজড়িত “বন্দেমাতরম ভবন”, যা ঘুরে দেখেন নাড্ডা। এবং ঠিক তারপরের কর্মসূচি ছিল ওই জেলারই চন্দননগর বাগবাজার এলাকার রাসবিহারী রিসার্চ ইনস্টিটিউটে। যা নিয়ে তুমুল বিতর্ক রাজনৈতিক মহলে।

কিন্তু জল গড়িয়েছে আরও অনেক দূর। বুধবার সকালে কর্মসূচি শুরু হওয়ার ঠিক আগে বিজেপি রাজ্য সম্পাদক দীপাঞ্জন গুহকে সকলের সামনে ধমক দিলেন সাংসদ তথা রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক লকেট চট্টোপাধ্যায়। কিন্তু এই ধমকের শিকড় অনেক গভীরে!

জানা গিয়েছে, সর্বভারতীয় সভাপতির হুগলি জেলা সফরের দায়িত্ব ছিল দীপাঞ্জন গুহর কাঁধে। যিনি আবার লকেট চট্টোপাধ্যায় বিরোধী গোষ্ঠীর নেতা বলেই জেলা ও রাজ্য রাজনীতিতে পরিচিত। নাড্ডার কর্মসূচিতে কারা থাকবেন, নিরপেক্ষভাবে সেই সবকিছু ঠিক করতে বলা হয়েছিল দীপাঞ্জনকে। আর সেই জায়গাতেই বিপত্তি। অভিযোগ, সুযোগের সদ্ব্যবহার করে দীপাঞ্জন নিজের বৃত্তে থাকা নেতা-কর্মীদের নাড্ডার কর্মসূচিতে প্রবেশের সুযোগ করে দিয়েছেন। যা নিয়ে প্রবল উত্তেজনা তৈরি হয়।

তারও আগে ফ্লেক্স ব্যানার নিয়ে গোলমালের সূত্রপাত গতকাক, মঙ্গলবার রাতে। দীপাঞ্জন সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় ও জেলা সভাপতি তুষার মজুমদারের ছবি দেওয়া যাবতীয় ব্যানার–ফ্লেক্স তাঁর অনুগামীদের দিয়ে সরিয়ে দিয়েছিলেন। এই খবর চাউর হতেই দীপাঞ্জন গুহকে প্রকাশ্যে ভর্ৎসনা করেন সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়।

দলীয় অন্তর্কলহের সেই রেশের মধ্যেই হুগলি জেলার দুটি কর্মসূচিতে পৌঁছনজেপি নাড্ডা। সঙ্গে ছিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার, প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী-সহ রাজ্য শীর্ষ নেতৃত্ব। তখন আচমকাই দুই গোষ্ঠীর মধ্যে শুরু হয় ঠেলাঠেলি-ধাক্কাধাক্কি। সেখান থেকে হাতাহাতি। বিশৃঙ্খলা এমন চরম পর্যায়ে পৌঁছয় যে, বেশ কয়েকজনকে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি পর্যন্ত করতে হয়েছে।

আরও পড়ুন- HS Result: শুক্রবার অনলাইনে উচ্চমাধ্যমিকের ফলপ্রকাশ, সময় পিছোল ৩০ মিনিট

Previous articleঅর্থনৈতিক সংকটে থাকা শ্রীলঙ্কাকে সাহায্য করায় ভারতের প্রশংসায় চিন