চাকরি দেওয়ার নামে টাকা নেওয়ার অভিযোগ, ভগবানপুরে অভিযুক্তর স্ত্রী-ছেলে-মেয়েকে মারধর

চাকরি দেওয়ার নামে টাকা নেওয়ার অভিযোগ। পূর্ব মেদিনীপুরের (East Midnapore) ভগবানপুরের কোটবার গ্রাম পঞ্চায়েতে পঞ্চায়েতের প্রাক্তন বিদ্যুৎ কর্মাধ্যক্ষ শিবশঙ্কর নায়েকের (Shivshankar Nayek) বাড়িতে চড়াও হয়ে তাঁর স্ত্রী, ছেলে, মেয়েকে বেদম মারধর স্থানীয়দের। এলাকাবাসীর অভিযোগ, এসএসসি (SSC) গ্রুপ ডি-তে নিয়োগের নামে চাকরিপ্রার্থীদের কাছ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা নিয়েছেন তিনি। শনিবার, তাঁর বাড়িতে চড়াও হন স্থানীয়রা। তাঁকে না পেয়ে তাঁর স্ত্রী, পুত্র-কন্যাকে বেধড়ক মারধর করা হয়। শিবশঙ্করের স্ত্রী মলিনা নায়েক বলেন, “চাকরি দেওয়ার নামে টাকা নেওয়ার প্রমাণ কী?“ কোনও প্রমাণ ছাড়াই বাড়িতে গিয়ে তাঁকে ও তাঁর ছেলে-মেয়েকে বেধড়ক মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ মহিলার। তিনি বলেন, ”আমার স্বামী যদি টাকা নিয়ে থাকেন, তাহলে তিনি যেমন দোষী, তেমন যাঁরা টাকা দিয়েছেন তাঁরাও দোষী।” জেলা তৃণমূলের মতে, ঘটনার সঙ্গে দল কোনও ভাবেই জড়িত নয়। কেউ যদি অন্যায় করে থাকেন, তাহলে দল তাঁকে কখনই সমর্থন করবে না। তবে, আইন নিজের হাতে তুলে না নিয়ে সঠিক জায়গায় অভিযোগ দায়ের করা হোক। প্রশাসনের উপর ভরসা রাখা উচিত।

আরও পড়ুন- ঐতিহাসিক পদক জয় ভারতের, ১০ হাজার মিটার রেস ওয়াকে রুপো জিতলেন প্রিয়াঙ্কা

স্থানীয়দের অভিযোগ, প্রাথমিকে এবং গ্রুপ ডি-র বিভিন্ন পদে চাকরির জন্য অনেকেই টাকা দিয়েছিলেন। কিন্তু প্রায় ৬বছর পেরিয়ে গেলেও তাঁরা চাকরি পাননি। এরপরই এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি মামলার তদন্তে বিভিন্ন তথ্য সামনে আসার পরেই তাঁরা অশান্ত হয়ে পড়েন। তার ফলেই এদিন শিবশঙ্কর নায়েকের বাড়িতে বিক্ষোভ দেখান। তৃণমূল নেতা বাড়িতে না থাকায় স্ত্রী মলিনা নায়েক, তাঁর ছেলে ও মেয়েকে বাড়ির বাইরে টেনে এনে বেধড়ক মারধর করা হয়। শুধু তাই নয়, শিবশঙ্করের ছেলেকে গাছে বেঁধে মারা হয়। ভগবানপুর থানার পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এলাকা উত্তপ্ত থানায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

 

 

Previous articleপার্কস্ট্রিটে জাদুঘরের কাছে ভরসন্ধেয় চলল গুলি: গুলিবিদ্ধ ১ সিআইএসএফ জওয়ান, এলাকায় চাঞ্চল্য